বাড়িতে বর্ষবরণের রাত এবার এভাবেই সেলিব্রেট করুন

বর্ষশেষে ধুম লেগেছে পার্টির। বিভিন্ন পার্টি ডেস্টিনেশনে হরেক আয়োজন। বার-রেস্তরাঁ-পাবগুলি সেজে উঠেছে রঙিন সাজে। একটা গোটা বছরকে বিদায় দিয়ে নতুনকে স্বাগত জানানোর লগ্ন। অনেক কিছু ভুলে আনন্দে মেতে ওঠার এই তো সময়। ফলে আয়োজনের কোনও ত্রুটি নেই।

কিন্তু এই উচ্ছ্বল যাপন অনেকেরই পছন্দ নয়। পার্টি বা পার্টির পরিবেশ পছন্দ কারও নাই-বা হতে পারে। কিন্তু নিউ ইয়ার সেলিব্রেশন থেকে তিনিই বা বঞ্চিত হবেন কেন? হ্যাঁ, পার্টি ছাড়াও সেলিব্রেশনের বহু উপায় আছে। তারই কিছু টিপস থাকল এই প্রতিবেদনে।

যদি বছর শেষের রাতে মন ভাল রাখতে চান, তবে নিজের ঘরটাই পছন্দমতো সাজিয়ে তুলুন। বিজলী আলো নিভিয়ে সেন্টেড ক্যান্ডেল জ্বালিয়ে দিন। মৃদু আলো আর হালকা আলোয় মায়াময় পরিবেশ তৈরি হবে। মিউজিক সাউন্ডে হালকা করে পছন্দের কোনও গান বা মিউজিক পিস চালিয়ে দিতে পারেন। পার্টির থেকে এই পরিবেশ কম আকর্ষক নয়।

পরিবেশ তো তৈরি হল। এবার করবেন কী? অনেক কিছু করার আছে। যদি একা একা সময় কাটাতে ভালবাসেন, তবে ২০১৮-এর প্রিয় স্মৃতিগুলো নিয়ে নাড়াচাড়া করুন। ল্যাপটপের হার্ড ডিস্ক বা মোবাইল খুঁজে দেখুন। অনেক প্রিয় ছবি খুঁজে পাবেন। একটা অ্যালবাম বানিয়ে ফেলতে পারেন। কীভাবে আপনি গেলবছরটা মনে রাখতে চান, তার একটা কোলাজ তৈরি করে ফেলুন। এছাড়া পুরনো অ্যালবামগুলোও নাড়াচাড়া করে দেখতে পারেন। ব্যস্ত জীবনে খুব একটা সময় তো হয় না। অবসর কাটান মনের মতো।

যদি সিনেমা দেখতে ভালবাসেন, তবে এই পরিবেশে পছন্দের একটা সিনেমা দেখে ফেলুন। সঙ্গে গরম কফির ব্যবস্থা রাখবেন। বন্ধুবান্ধব বা প্রিয়জনকে কাছে নিয়ে কফি আর পছন্দের স্ন্যাক্স নিয়ে মনের মতো একটা সিনেমা দেখার থেকে ভাল সময় আর কীভাবে কাটাবেন।

আপনি যদি বইপোকা হন তবে তো কথাই নেই। এমন অনেক পুরনো বই আছে, যা একবার পড়েছেন, আবার পড়তে ইচ্ছে করে, কিন্তু সময়াভাবে হয়ে ওঠে না। এই অবসরে পড়ার টেবিলের আলোটা জ্বালিয়ে জাস্ট বসে পড়ুন। দেখবেন, নিজের প্রিয় জগতের মধ্যে ডুবে থেকে সময়টা ভালই কাটবে। ভাবুন মায়াবী এক পরিবেশে আপনি ডুবে আছেন অবন ঠাকুরের নালকে-মন্দ হবে!

পার্টির হইচই পছন্দ হয় না। কিন্তু নাচ-গান তো ভালবাসেন। তাহলে কুছ পরোয়া নেহি। সাউন্ড সিস্টেমে পছন্দের মিউজিক চালিয়ে নিজেই নাচুন। দেখবেন সময়টাও ভাল কাটবে। নিজেকেও অনেকটা ঝরঝরে লাগবে।

কাজের চাপে নিজেরই খেয়াল রাখতে পারেন না। এই অবসরে সেই কাজটি সেরে ফেলুন। বিশ্বাসযোগ্য কোনও স্পা সেন্টারে চলে যান। বছরশেষের মুহূর্তে নিজেকে নিয়েই নাহয় একটু মেতে থাকলেন। শরীরের দিক থেকেও তা মন্দ নয়। তাছাড়া নতুন বছর, নতুন চাপ, নতুন করে ব্যস্ততা। তার আগে নিজেকে একটু চাঙ্গা করে নিতে পারবেন।

এই শহরেই থাকেন। কিন্তু শহরের অনেকটাই তো অদেখা। হাতে যখন সময় আছে, তখন কাছেপিঠে একটু ঘুরেই আসুন না। পছন্দের যে পোশাকটি অনেকদিন পরবেন পরবেন করেও পরতে পারছেন না, আজ সেটা পরে ফেলুন। তারপর বেরিয়ে পড়ুন চেনা শহরের অচেনা জায়গায়। মাঝে পছন্দের কোনও খাবার কিনে খেয়েও নিতে পারেন। চাইলে একটু শপিংও করে নিতে পারেন।

শেষমেশ এ সব যদি কোনও কিছুই পছন্দ না হয় তাহলেও উপায় আছে। যে খাবার অনেকদিন খেতে পারছেন না তার অর্ডার করে ফেলুন। তারপর চিন্তা-ভাবনা ছাড়া টানা ঘুম দিন। হ্যাঁ, ফোনটি সুইচ অফ করে দিতে পারেন। প্রায় প্রত্যেকেই পার্টিতে ব্যস্ত। এই সময়টা একেবারে নিজেকেই দিন।