ফেসবুক নিয়ে এলো একসঙ্গে ৫০জন মিলে ভিডিও কলের পরিষেবা – বিস্তারিত লিঙ্কে…

মাস কয়েক আগেও বিশ্বের ছবিটা ছিল অন্যরকম। কিন্তু এক অদৃশ্য ভাই’রাসের দাপটে সবটা পালটে গিয়েছে। করোনার সামনে থেকে গিয়েছে বিজ্ঞানের বিজয়রথ। ভাই’রাস মোকাবিলায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জারি লক’ডাউন।

আর এই লক’ডাউনেই উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে স্মার্টফোন এবং ইন্টারনেট ব্যবহার। পরস্পরের সঙ্গে দেখা করার আর জুড়ে থাকার মাধ্যম এখন ভিডিও কল। সে কথা মাথায় রেখেই মেসেঞ্জার রুম নিয়ে ফেসবুক। যার মাধ্যমে ভিডিও কলে একসঙ্গে ৫০ জনের সঙ্গে কথা বলা যাবে।

লক’ডাউনে বন্ধুবান্ধব অথবা পরিবারের সঙ্গে ভিডিও কলের মাধ্যমে যোগাযোগ রাখতে অনেকেই জুম অ্যাপের শরণাপন্ন হচ্ছেন। কারণ এই অ্যাপে একসঙ্গে অনেকের সঙ্গে অনায়াসেই ভিডিও চ্যাট করা যায়।

ভারচুয়াল আড্ডা চলে দীর্ঘক্ষণ। কিন্তু জুম অ্যাপের বিরুদ্ধে আবার উঠতে তথ্য চুরির অভিযোগ। তাই অনেকেই ভয়ে তা ব্যবহার করতে ইতস্তত করছেন। অবশেষে এই সমস্যা মেটাতে আসরে নামে ফেসবুক। ইউজারদের মুখে হাসি ফোটাতে নয়া প্ল্যাটফর্ম চালু করল মার্ক জুকারবার্গের কোম্পানি।

মেসেঞ্জার রুম। মূলত ভিডিও কল করার জন্যই তৈরি এই প্ল্যাটফর্ম। পঞ্চাশ জন পর্যন্ত ইউজারকে ভিডিও কল করে একসঙ্গে চ্যাট করা যাবে। সবচেয়ে মজার বিষয় হল, ফেসবুক অ্যাকাউন্ট না থাকলেও মেসেঞ্জার রুমে চ্যাটিং করা যাবে।

একটি লিংকের মাধ্যমেই একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করা যাবে। কোনও ইউজার অন্য একজনকে জয়েন করার লিংকটি পাঠালেই তিনি ঢুকে পড়তে পারবেন মেসেঞ্জার রুমে।

এককথায় ভারচুয়াল পার্টিরও আয়োজন করতে পারেন এই প্ল্যাটফর্মে। লকডাউনের মধ্যেই মেসেঞ্জার রুম চালু করে জুমকে যেন সরাসরি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন জুকারবার্গ। কঠিন সময়ে এই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমেই মানুষের মধ্যে সম্পর্ক নিবিড় হবে বলে বিশ্বাস ফেসবুকের।

আপাতত এই মেসেঞ্জার রুমস ফেসবুকের মধ্যেই সীমাবদ্ধ। তবে পরবর্তীকালে ইনস্টাগ্রাম ডিরেক্ট, হোয়াটসঅ্যাপের সঙ্গেও এটি জুড়ে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।