গর্ভকালীন সময় মায়ের যত্ন


করোনাভাইরাস সংক্রমণের এই সময় প্রথমবারের মতো যাঁরা মা হতে যাচ্ছেন, তাঁদের কিছুটা দুশ্চিন্তায় পড়তে হচ্ছে বৈকি। কারণ, এ সময়টায় খুব বেশি বাইরে বের হওয়া তাঁদের জন্য একেবারেই নিরাপদ নয়। এ ছাড়া গর্ভকালে হবু মায়ের শরীরে দেখা দেয় নানা ধরনের উপসর্গ, যেগুলো সম্পর্কে একেবারেই অনভিজ্ঞ থাকেন তাঁরা। এর মধ্যে অন্যতম হলো ত্বকের সমস্যা। শুষ্ক হয়ে যাওয়া, ঔজ্জ্বল্য কমে যাওয়া, অ্যালার্জি হওয়াসহ নানা ধরনের ত্বকের সমস্যায় পড়তে হয় হবু মাকে। এই সময়ে যাঁদের পক্ষে সৌন্দর্যচর্চা কেন্দ্রে যাওয়া সম্ভব নয়, তাঁরা কিন্তু সমস্যার সমাধান পেতে পারেন বাড়িতে বসেই।

হারমোনি স্পার রূপবিশেষজ্ঞ রাহিমা সুলতানা রীতা মনে করেন, যদি আগে থেকেই সচেতন হওয়া যায়, তবে হবু মা এড়িয়ে যেতে পারেন অনেক সমস্যাই। গর্ভকালে ঘরে থাকা উপাদানে খুব সহজে কীভাবে নিজের যত্ন নেবেন, এই বিষয়ে পরামর্শ দিলেন তিনি।
গর্ভকালে গোসল করার জন্য সাবানের ব্যবহার না করার পরামর্শ দিলেন এই রূপবিশেষজ্ঞ। কারণ, সাবান ব্যবহারের কারণে ত্বক আরও শুষ্ক হয়ে পড়ে। গর্ভকালে যেহেতু ত্বকে অ্যালার্জি আর ফুসকুড়ির মতো সমস্যা বেশি দেখা দেয়, তাই সাবানের বিকল্প হিসেবে চালের গুঁড়া ব্যবহার করতে পারেন। নিয়মিত মুখের ত্বক পরিষ্কার করতে সপ্তাহে ১ থেকে ২ বার স্ক্রাবিং করুন। বাড়িতে স্ক্রাব তৈরি করতে ২ টেবিল চামচ চালের গুঁড়ার সঙ্গে আধা কাপ তরল দুধ ও ১ চা-চামচ মধু মেশান। তবে যদি একান্তই সাবান ব্যবহারের প্রয়োজন হয়, তাহলে গ্লিসারিনসমৃদ্ধ সাবান ব্যবহার করাই ভালো।

গোসলের পরপরই ত্বক ভেজা থাকা অবস্থায় ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। মনে রাখবেন, ভেজা ত্বক শুকিয়ে যাওয়ার পর ময়েশ্চারাইজার মাখলে কোনো কাজ হবে না। তাই ত্বক ভেজা থাকতে থাকতেই ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন।

গর্ভকালে গোসল করার জন্য সাবানের ব্যবহার না করার পরামর্শ দেন রূপবিশেষজ্ঞরা। কারণ, সাবান ব্যবহারের কারণে ত্বক আরও শুষ্ক হয়ে পড়ে। গর্ভকালে যেহেতু ত্বকে অ্যালার্জি আর ফুসকুড়ির মতো সমস্যা বেশি দেখা দেয়, তাই সাবানের বিকল্প হিসেবে চালের গুঁড়া ব্যবহার করতে পারেন। নিয়মিত মুখের ত্বক পরিষ্কার করতে সপ্তাহে ১ থেকে ২ বার স্ক্রাবিং করুন।

ময়েশ্চারাইজার হিসেবে গ্লিসারিনের পরিবর্তে অলিভ অয়েলও ব্যবহার করতে পারেন। গ্লিসারিন হলো সবচেয়ে ভালো ময়েশ্চারাইজার। এক ভাগ গ্লিসারিনের সঙ্গে দুই থেকে তিন ভাগ পানি মিশিয়ে ব্যবহার করুন। গ্লিসারিন ত্বকে লাগানোর পর একটা ভিজে তোয়ালে বা কাপড় হালকা করে ত্বকে চেপে ধরলে আঠালো ভাব চলে যাবে। যাঁদের এই সময়ে বাইরে যেতে হয়, তাঁরা রোদে বের হওয়ার আগে অবশ্যই ত্বকে সানস্ক্রিন ক্রিম মেখে বের হবেন।

গর্ভকালে গলার ত্বকে কালচে দাগ পড়া এক সাধারণ সমস্যা। এই দাগ কমাতে বাড়িতেই মাস্ক তৈরি করতে পারেন। ২ টেবিল চামচ টক দইয়ের সঙ্গে ১ টেবিল চামচ মসুর ডালের বেসন ও ১ চা-চামচ মধু মিশিয়ে মাস্ক তৈরি করুন। সপ্তাহে ২ বার এই মাস্ক গলার ত্বকে ব্যবহার করলে উপকার পাবেন। পেট, ঊরু বা শরীরের যে অংশেই ফেটে দাগের সৃষ্টি হবে, সেখানে পেট্রোলিয়াম জেলি লাগাতে পারেন। সম্ভব হলে দিনে বেশ কয়েকবার তা ব্যবহার করুন।

ময়েশ্চারাইজার হিসেবে গ্লিসারিনের পরিবর্তে অলিভ অয়েলও ব্যবহার করতে পারেন। গ্লিসারিন হলো সবচেয়ে ভালো ময়েশ্চারাইজার। এক ভাগ গ্লিসারিনের সঙ্গে দুই থেকে তিন ভাগ পানি মিশিয়ে ব্যবহার করুন। গ্লিসারিন ত্বকে লাগানোর পর একটা ভিজে তোয়ালে বা কাপড় হালকা করে ত্বকে চেপে ধরলে আঠালো ভাব চলে যাবে।

হাত ও পায়ের ত্বকের যত্নে বাড়িতেই পেডিকিওর ও ম্যানিকিওর করতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন, বাড়িতে নিজে নিজে পায়ের যত্ন নিতে গিয়ে যাতে খুব বেশি নিচু হতে না হয়। যদি নিচু হয়ে পা পরিষ্কার করতে হয়, তবে বাড়িতে অন্য কারও সাহায্য নিন। এ ছাড়া গর্ভাবস্থায় দীর্ঘ সময় এক জায়গায় বসে থাকলে অনেকের পা ফুলে যায়। যাতে দীর্ঘ সময় এক জায়গায় বসে থাকতে না হয়, সেদিকেও বিশেষ খেয়ার রাখতে হবে।